মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

এক নজরে জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়, ঝালকাঠির

চলমান কার্যক্রম/ সেবা সমূহ :

কার্যক্রম

সংখ্যা/পরিমান/কার্ড সংখ্যা (জেলা) 

উপজেলা

পরিমান/একক ও মূল্যায়ন

নাম

সংখ্যা

বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ

১৬০ জন (প্রতি ম্যাচে)

সদর

১০০ জন

০৫টি ট্রেডে ০৩ মাস মেয়াদী  প্রশিক্ষণ চলমান। প্রতি অর্থবছরে ৪০০ জনকে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দান  এবং প্রতি কার্য দিবসে প্রত্যেকে ৬০ টাকা হারে ভাতা প্রদান

নলছিটি

৩০ জন

০১টি ট্রেডে ০৩ মাস মেয়াদী  প্রশিক্ষণ চলমান। প্রতি অর্থবছরে ১২০ জনকে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দান  এবং প্রতি কার্য দিবসে প্রত্যেকে ৬০ টাকা হারে ভাতা প্রদান

রাজাপুর

৩০ জন

০১টি ট্রেডে ০৩ মাস মেয়াদী  প্রশিক্ষণ চলমান। প্রতি অর্থবছরে ১২০ জনকে প্রবিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দান  এবং প্রতি কার্য দিবসে প্রত্যেকে ৬০ টাকা হারে ভাতা প্রদান

সমিতি নিবন্ধন

১২৬ টি

সদর

৪০ টি

সমিতির সদস্যদের আর্থ- সামাজিক উন্নয়নে প্রশিক্ষণসহ সহযোগিতা প্রদান এবং চলমান সমিতির উন্নয়নে বার্ষিক ও বিশেষ অনুদান প্রদান 

নলছিটি

৫১ টি

রাজাপুর”

২৬ টি

কাঠালিয়া

০৯ টি

অনুদান বিতরণ

জেলা পর্যায়ে কার্যক্রম বাস্তবায়িত হয়। ২০১৬-২০১৭ অর্থ বছরে ৪০টি সমিতির মধ্যে ৭,৭৫,০০০/- অনুদান বিতরণ করা হয়েছে।

ক্ষুদ্রঋণ বিতরণ

৯৪৯ জন

৮৯,৫৬,০০০/-

সদর

১৯৭ জন

১৫,৭০,০০০/-

নলছিটি

২৪৬ জন

৩১,০০,০০০/-

রাজাপুর

৩৪০ জন

২৬,৭৬,০০০/-

কাঠালিয়া

১৬৮ জন

১৬,১০,০০০/-

ভিজিডি প্রদান

৮৩৬৬ জন

সদর

১৮৪৪ জন

প্রত্যেক কার্ডধারীকে মাসে ৩০ কেজি করে ০২ বছর পর্যন্ত খাদ্য সহায়তা প্রদান।

নলছিটি

২৩৫৩ জন

রাজাপুর

২৬৩৩ জন

কাঠালিয়া

১৫৩৬ জন

মাতৃত্বকাল ভাতা প্রদান

৩৫৬৪ জন

সদর

১১১০ জন

প্রত্যেক ভাতাভোগীকে স্ব স্ব ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে মাসে ৫০০/- করে ০২ বছর পর্যন্ত ভাতা প্রদান।

নলছিটি

১১১০ জন

রাজাপুর

৬৭২ জন

কাঠালিয়া

৬৭২ জন

কর্মজীবি ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তা তহবিলের ভাতা প্রদান

১১০০ জন

(পৌরসভাধীন)

সদর

৮০০ জন

প্রত্যেক ভাতাভোগীকে স্ব স্ব ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে মাসে ৫০০/- করে ০২ বছর পর্যন্ত ভাতা প্রদান।

নলছিটি

৩৫০ জন

কিশোর কিশোরী ক্লাব

৩২ টি

সদর

১০ টি

প্রতি ক্লাবে ৩০ জন (২০ জন কিশোরী ও ১০ জন কিশোর) সদস্য আছে। সপ্তাহে ০২ দিন বিকালে ক্লাব বসে। ক্লাবভূক্ত কিশোর কিশোরীদের সমাজের ইতিবাচক পরিবর্তনে ক্ষমতায়ন ও দক্ষ করে গড়ে তোলা হচ্ছে। 

নলছিটি

১০ টি

রাজাপুর

০৬ টি

কাঠালিয়া

০৬ টি

কী সেবা কীভাবে পাবেন

সেবার নাম : জীবিকায়নের জন্য মহিলাদের দক্ষতা ভিত্তিক প্রশিক্ষণ কর্মসূচি

পটভূমি : নারী পুরুষের সমতা আনায়ন এবং নারীর ক্ষমতায়ন তরান্বিত করাই মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মূল উদ্দেশ্য। জাতীয় উন্নয়ন প্রচেষ্টার মূল ধারায় নারীদের সম্পৃক্তকরণ ও নারীর সার্বিক ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করা সুষম উন্নয়নের একটি অপরিহার্য পূর্বশর্ত। নারী উন্নয়নের ধারাকে ব্যাপকভাবে গতিশীল করার নিমিত্ত মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর রাজস্ব ও উন্নয়ন বাজেটের আওতায় দেশের শিক্ষিত, স্বল্প শিক্ষিত, দুঃস্থ ও অসহায় মহিলাদের স্বাবলম্বী করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। এ লক্ষ্যে স্থানীয় পর্যায়ে নারীর দক্ষতা বৃদ্ধি, আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি, অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা এবং দক্ষ মানব সম্পদ রূপে গড়ে তোলার জন্য এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে।

কর্মসূচির উদ্দেশ্য : মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরাধীন জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম উন্নয়ন ও বৃত্তিমূলক আধুনিক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিত মহিলাদের (১৮-৪৫ বছর) দক্ষতা বৃদ্ধিকরণের লক্ষ্যে ৬৪টি জেলা কার্যালয়ের বিদ্যমান মহিলা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রগুলোতে আধুনিক এবং যুগোপযোগী প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা এ কর্মসূচির মূল উদ্দেশ্য।

কিভাবে পাবেন : মহিলাদের আত্ম-কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য ০৫টি ট্রেডে (আধুনিক দর্জি বিজ্ঞান, মোমবাতি তৈরী, মোবাইল ফোন সার্ভিসিং, বিউটিফিকেশন, খাদ্যদ্রব্য প্রক্রিয়াজাতকরণ) ০৩ মাস মেয়াদী প্রশিক্ষণ সম্পূর্ণ বিনামূল্যে প্রদান করা হয়। প্রতি জুন/সেপ্টেম্বর/ডিসেম্বর/মার্চ মাসের ১০-২৫ তারিখের মধ্যে সরাসরি দপ্তরে যোগাযোগ করে নির্ধারিত ফরম সংগ্রহ করতে হয়। ফরমে চাহিত তথ্যাদি উল্লেখ পূর্বক দাখিল করতে হবে। ফরমের সাথে ছবি ০২ কপি, জাতীয় পরিচয় পত্র/ জন্মনিবন্ধনের সত্যায়িত ফটোকপি, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদের সত্যায়িত ফটোকপি এবং ইউপি চেয়ারম্যান/কাউন্সিলরের নাগরিকত্ব সনদ দাখিল করতে হবে। দপ্তরের নির্ধারিত তারিখে বাছাই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। বয়স : ১৬ থেকে অনুর্ধ ৪৫ বছর। নির্বাচিত প্রশিক্ষণার্থীদের প্রতি কার্যদিবসে ৬০/- হারে (উপস্থিতি অনুযায়ী) যাতায়াত ভাতা প্রদান করা হয়।দুঃস্থ, অসহায়, বেকার, এতিম, বিধবা/স্বামী পরিত্যাক্তা মহিলাদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়।

আরো জানতে : ০১৫৫২৪১৯৭৪৮/০১৭৭৫৮৭৯৭৯৩ নম্বরে কল করুন।

সেবার নাম : স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সংগঠন নিবন্ধন

পটভূমি : ১৯৬১ সনের ৪৬নং অর্ডিন্যান্স অনুযায়ী স্বেচ্ছাসেবী সমাজকল্যাণ প্রতিষ্ঠান সমূহের রেজিস্ট্রেশন ও নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা চালুকরা হয়। এ অর্ডিন্যান্স অনুযায়ী শুরু হতে সমাজকল্যাণ অধিদপ্তর মহিলা সমাজকল্যাণ প্রতিষ্ঠান সমূহের নিবন্ধন ও নিয়ন্ত্রণ করছে। ১৯৭৮ সনের ৫ এপ্রিল বিজ্ঞপ্তি নং পি-এস/মবি-৪৬৫/৭৭-২৪০-১৯৬১ এর প্রেক্ষিতে মহিলা স্বেচ্ছাসেবী সমাজকল্যাণ সংস্থাসমূহ (রেজিস্ট্রেশন ও নিয়ন্ত্রণ) অধ্যাদেশ (১৯৬১ সালের ৪৬ নং অধ্যাদেশ) এর ক্ষমতাবলে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর শুধুমাত্র মহিলাদের দ্বারা গঠিত মহিলাদের জন্য স্বেচ্ছাসেবী মহিলা প্রতিষ্ঠান সমূহকে নিবন্ধন, নিয়ন্ত্রণ এবং সমিতিসমূহের মধ্যে বার্ষিক অনুদান বিতরণ করে আসছে। স্মারক নং-সকমবিম/শা-মবি-১/৬(৪)/৮৯/৬১, তাং ৩০/৪/৮৯ আদেশ বলে ১৯৮৯ সাল হতে জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে সমিতি রেজিস্ট্রেশন দেয়া হচ্ছে।

ঝালকাঠি জেলায় জুন ২০১৮ পর্যন্ত ১২৬ মহিলা সমিতি নিবন্ধন দেয়া হয়েছে।

ঝালকাঠি সদর : নিবন্ধিত মহিলা সমিতির সংখ্যা- ৪০টি

নলছিটি : নিবন্ধিত মহিলা সমিতির সংখ্যা- ৫১টি

রাজাপুর : নিবন্ধিত মহিলা সমিতির সংখ্যা- ২৬টি

কাঠালিয়া : নিবন্ধিত মহিলা সমিতির সংখ্যা- ৯টি

কিভাবে পাবেন : মহিলাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, সচেতনতা বৃদ্ধি, অধিকার সংরক্ষন, ক্ষমতায়ন সর্বোপরি নারীর স্বার্থ সংরক্ষনের জন্য স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতি নিবন্ধন করা হয়। সমিতি নিবন্ধনের জন্য নিবন্ধনের কমপক্ষে ০১ বছর পূর্বে সর্বনিম্ন ৩৫জন সদস্য নিয়ে সমিতি গঠন করতে হবে এবং ৭/১১ সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরী কমিটি ও নারী স্বার্থ সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম চলমান থাকতে হবে। সমিতি নিবন্ধনের জন্য নির্ধারিত ফরমে চাহিত তথ্যাদি উল্লেখ পূর্বক আবেদন করতে হবে। আবেদন পত্রের সাথে সমিতির গঠনতন্ত্র, সমিতি গঠন ও কার্যকরী কমিটি গঠন সম্পর্কিত সভার কার্যবিবরণী, ব্যাংক হিসাব, সদস্য ও কার্যকরী কমিটির তালিকা, চলমান কার্যক্রমের তথ্য, স্থানীয় প্রশাসনের সুপারিশ/মতামত এবং কর্তৃপক্ষের চাহিত অন্যান্য তথ্য (যদি থাকে) দাখিল করতে হবে। সংশ্লিষ্ট এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাঠ পর্যায়ে সমিতি পরিদর্শন পূর্বক প্রতিবেদনের ভিত্তিতে সমিতি নিবন্ধন করা হয়। সমিতি নিবন্ধনের জন্য সরকারি কোষাগারে ট্রেজারী চালানের মাধ্যমে ২,০০০/- জমাদান পূর্বক চালানের কপি আবেদন পত্রের সাথে দাখিল করতে হয়। সমিতি নিবন্ধনের আবেদন ফরম জেলা/উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয় হতে/ ওয়েব সাইট : www.dwa.gov.bd হতে সংগ্রহ করা যাবে।

আরো জানতে : ০১৫৫২৪১৯৭৪৮/০১৭৭৫৮৭৯৭৯৩ নম্বরে কল করুন।

সেবার নাম : নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সংগঠনের অনুকূলে অনুদান বিতরণ

কিভাবে পাবেন : নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতির অনুকূলে প্রতি অর্থবছরে অনুদান বিতরণ করা হয়। সমিতির কার্যক্রমের ভিত্তিতে সমিতিকে “ক” , “খ”  ও “গ” শ্রেনীতে বিভক্ত করে অনুদান বিতরণ করা হয়। অনুদান প্রাপ্তির জন্য সমিতির কার্যক্রম চলমান থাকতে হবে। নিবন্ধিত সমিতিকে প্রতি অর্থবছরে সরকারি কোষাগারে ট্রেজারী চালানের মাধ্যমে ৫০০/- জমাদান পূর্বক রেজিস্ট্রেশন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে সমিতির রেজিস্ট্রেশন নবায়ন করতে হবে। নবায়ন ছাড়া সমিতি অনুদান প্রাপ্তির যোগ্য নয় বলে গন্য হয়। অনুদান প্রাপ্তির জন্য জেলা/উপজেলা মহিলা বিষয়ক কার্যালয় হতে/ওয়েব সাইট : www.dwa.gov.bd হতে অনুদানের আবেদন ফরম সংগ্রহ করতে হবে। আবেদন পত্রে এবং আবেদন পত্রের সাথে চাহিত সকল তথ্যাদি যথাযথভাবে দাখিল করতে হবে। প্রতি অর্থবছরের আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাসে পর্যন্ত আবেদন গ্রহণ করা হয়। যাবে।আরো জানতে : ০১৫৫২৪১৯৭৪৮/০১৭৭৫৮৭৯৭৯৩নম্বরে কল করুন।

সেবার নাম : ক্ষুদ্রঋণ বিতরণ

কিভাবে পাবেন : মহিলাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে আত্ম-কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য ক্ষুদ্রঋণ বিতরণ করা হয়। এ ঋণ ৫% সার্ভিস চার্জের বিনিময়ে ২৪ মাস মেয়াদে বিতরণ করা হয়। ঋণের পরিমান সর্বোচ্চ ১৫,০০০/-।এ ঋণ প্রাপ্তির জন্য আবেদন ফরম জেলা/উপজেলা মহিলা বিষয়ক কার্যালয় হতে/ওয়েব সাইট : www.dwa.gov.bd হতে পাওয়া যাবে।ঋণের আবেদন পত্রের সাথে ০২কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের সত্যায়িত অনুলিপি, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান/কাউন্সিলর এর নাগরিকত্ব সনদ, চেয়ারম্যান/কাউন্সিলর/স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তির জামিনদার সূচক সম্মতি এবং ৩০০/- নন-জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে অঙ্গীকার নামা দাখিল করতে হবে। ঋণ গ্রহণের ০৬ মাস পর থেকে কিস্তি শুরু হয় এবং ১৮ কিস্তিতে সম্পূর্ণ পরিশোধযোগ্য। উদাহরণ স্বরূপ : ১৫০০০ টাকা ঋণ গ্রহণ করলে সার্ভিস চার্জসহ পরিশোধ করতে হয় সর্বমোট ১৫৭৫০ টাকা, প্রতি কিস্তিতে (মাসিক) পরিশাধ করতে হয় ৮৭৫ টাকা।                                                আরো জানতে : ০১৫৫২৪১৯৭৪৮/০১৭৭৫৮৭৯৭৯৩ নম্বরে কল করুন।

সেবার নাম : দুঃস্থ মহিলা উন্নয়ন (ভিজিডি) কর্মসূচি

কিভাবে পাবেন : দারিদ্রতা নিরসনে খাদ্য সহায়তা প্রদানের নিমিত্তে এ কর্মসূচির আওতায় দুঃস্থ, অসহায়, গরীব মহিলাদের ০২ বছর মেয়াদী খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর সারাদেশে ১০ লক্ষ নারীদের খাদ্য সহায়তা প্রদানের কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। প্রতি মাসে প্রত্যেক নারীকে ৩০ কেজি করে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। খাদ্য সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি উপকারভোগীদের পারিবারিক স্বাস্থ্য, পুষ্টি, স্যানিটেশন, আয়বর্ধন মূলক কার্যক্রমের উপর প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। উপকারভোগীদের সঞ্চয়ের মনোভাব সৃষ্টি এবং মেয়াদ শেষে আয়বর্ধক কার্যক্রমে জড়িত হওয়ার জন্য প্রত্যেক উপকারভোগীদের মাসে ২০০/- করে সঞ্চয় (বাধ্যতামূলক)জমা দিতে হয়।মেয়াদ শেষে সঞচয়ের সম্পূর্ণ অর্থ মুনাফাসহ ফেরত প্রদান করা হয়।এ সেবা প্রাপ্তির জন্য ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান/সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করে আবেদন দাখিল করতে হয়। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে প্রাপ্ত প্রাথমিক তালিকা মাঠ পর্যায়ে যাচাই-বাছাই করে উপজেলা কমিটির মাধ্যমে চূড়ান্ত তালিকা অনুমোদন দেয়া হয়। আরো জানতে : ০১৫৫২৪১৯৭৪৮/০১৭৭৫৮৭৯৭৯৩ নম্বরে কল করুন। 

ভিজিডি উপকারভোগী হওয়ার শর্তাবলী : 

সেবার নাম : দরিদ্র মা’র জন্য মাতৃত্বকাল ভাতা প্রদান কর্মসূচি

পটভূমি : বাংলাদেশের পল্লী এলাকায় বসবাসরত অধিকাংশ মানুষই দারিদ্র পীড়িত। এদের মধ্যে মহিলাদের অবস্থা আরও শোচনীয়, বিশেষ করে দরিদ্র গর্ভবতী মায়েদের বর্তমানে মাতৃত্বকালীন স্বাস্থ্যের ধারণা শুধুমাত্র মাতৃস্বাস্থ্যের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। মাতৃস্বাস্থ্যের যত্নের বিষয়টি মানবাধিকার ও নৈতিকতার সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বলে এসব বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।

          কর্মসূচির কৌশলগত উদ্দেশ্য :

          ক. MDG ও PRSP ঘোষিত লক্ষ্য অনুযায়ী দরিদ্র মা ও শিশু মৃত্যুহার হ্রাস।

          খ. মাতৃদুগ্ধ পানের হার বৃদ্ধি।

          গ. গর্ভাবস্থায় উন্নত পুষ্টি উপাদান গ্রহণ বৃদ্ধি।

          ঘ. প্রসব ও প্রসবোত্তর সেবা বৃদ্ধি।

          ঙ. ইপিআই ও পরিবার পরিকল্পনা গ্রহণের হার বৃদ্ধি।

          চ. যৌতুক, তালাক ও বাল্যবিবাহ প্রবণতা রোধ।

          ছ. জন্ম নিবন্ধন উৎসাহিত করা।

          জ. বিবাহ নিবন্ধন উদ্ভুদ্ধকরণ।

কিভাবে পাবেন : মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। এ সেবা দুই বছর মেয়াদী। একজন গর্ভবতী/সদ্য সন্তান প্রসবকারী মাকে প্রতিমাসে ৫০০ হারে ০২ বছর পর্যন্ত ভাতা প্রদান করা হয়। এ সেবা প্রাপ্তির জন্য ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান/সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করে আবেদন দাখিল করতে হয়। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে প্রাপ্ত প্রাথমিক তালিকা মাঠ পর্যায়ে যাচাই-বাছাই করে উপজেলা কমিটির মাধ্যমে চূড়ান্ত তালিকা অনুমোদন দেয়া হয়। নির্বাচিত ভাতাভোগীদের নির্দিষ্ট ব্যাংকে ১০ টাকার বিনিময়ে ব্যাংক হিসাব খোলা হয় এবং উক্ত হিসাবের মাধ্যমে ভাতা প্রদান করা হয়।ভাতা প্রদানের পাশাপাশি উপকারভোগীদের পারিবারিক স্বাস্থ্য, পুষ্টি, স্যানিটেশন, মাতৃদুগবধপানের গুরুত্ব, আয়বর্ধন মূলক কার্যক্রমের উপর প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।প্রতি অর্থবছর শেষে (জুন মাসে) নতুন ভাতাভোগী নির্বাচন করা হয়। আরো জানতে : ০১৫৫২৪১৯৭৪৮/০১৭৭৫৮৭৯৭৯৩ নম্বরে কল করুন। 

মাতৃত্বকাল ভাতাভোগী হওয়ার শর্তাবলী :

সেবার নাম : কর্মজীবি ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তা তহবিল  কর্মসূচি

পটভূমি : ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তা তহবিল কর্মসূচি মা জাতির সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের প্রতি জাতীয় স্বীকৃতি। কর্মজীবি মা’দের জন্য এ সহায়তা দরিদ্র মা ও শিশুর স্বাস্থ্য, পুষ্টি উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকার কর্তৃক গৃহীত একটি অন্যতম সামাজিক নিরাপত্তামূলক কার্যক্রম। যার মাধ্যমে গর্ভধারণকাল থেকে ২৪ মাস পর্যন্ত সরকার নির্ধারিত হারে নগদ অর্থ, আর্থ-সামাজিক ও সচেতনতামূলক সেবা প্রদান করা হবে। উল্লেখ্য্, বাল্যবিবাহ ও যৌতুকের জন্য নির্যাতন রোধকল্পে শুধুমাত্র ২০ বছরের অধিক বয়সী দরিদ্র কর্মজীবি/দুগ্ধদায়ী মা’দের ক্ষেত্রে প্রথম বা দ্বিতীয় গর্ভধারণকালে এ ভাতা প্রযোজ্য হবে। গর্ভবতী মা’দের শিশু ভুমিষ্ট হওয়ার পর থেকে সুস্থ ও সবলভাবে বেড়ে উঠার জন্য প্রয়োজন স্বাস্থ্যসম্মত পরিচর্যা। এ প্রেক্ষিতে নারী ও শিশুর অধিকার সংরক্ষন বিশেষভাবে শিশুদের নিরাপদ ও সুস্থ পরিবেশে বেড়ে উঠার জন্য সমন্বিত কর্মসূচি হিসেবে শহর অঞ্চলে “কর্মজীবি ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তা তহবিল” কর্মসূচি বাস্তবায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

কর্মসূচির লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য :

লক্ষ্য :

ক. মা ও শিশু মৃত্যুহার হ্রাস।

খ. মাতৃদুগ্ধ পানের হার বৃদ্ধি।

গ. গর্ভাবস্থায়, প্রসব ও প্রসবোত্তর সেবা বৃদ্ধি।

ঘ. স্বাস্থ্য ও জন্মনিয়ন্ত্রণ।

ঙ. গৃহ ও নিরাপদ পরিবেশ।

চ. জীবিকার মান উন্নয়ন।

 ছ. পুষ্টি সহায়তা প্রদান।

উদ্দেশ্য :

          শহর এলাকার দরিদ্র কর্মজীবি দুগ্ধদায়ী মা এবং তাঁদের শিশুদের জন্য উপরে উল্লেখিত লক্ষ্য কেন্দ্রিক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করার মাধ্যমে সার্বিক জীবন যাত্রার মান উন্নয়ন করা।

কিভাবে পাবেন : মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। দেশের সকল সিটি কের্পোরেশন/পৌর এলাকার দুঃস্থ, অসহায়, গর্ভবতী/সদ্য সন্তান প্রসবকারী মাকে (নির্ধারিত সংখ্যা অনুযায়ী) প্রতিমাসে ৫০০ হারে ০২ বছর পর্যন্ত ভাতা প্রদান করা হয়। এ সেবা প্রাপ্তির জন্য জেলা/উপজেলা মহিলা বিষয়ক কার্যালয়/স্থানীয় কাউন্সিলর এর সাথে যোগাযোগ করে আবেদন দাখিল করতে হয়। প্রাপ্ত আবেদন সমূহ যাচাই-বাছাই করে জেলা/উপজেলা কমিটির মাধ্যমে চূড়ান্ত তালিকা অনুমোদন দেয়া হয়। নির্বাচিত ভাতাভোগীদের নির্দিষ্ট ব্যাংকে ১০ টাকার বিনিময়ে ব্যাংক হিসাব খোলা হয় এবং উক্ত হিসাবের মাধ্যমে ভাতা প্রদান করা হয়।ভাতা প্রদানের পাশাপাশি উপকারভোগীদের পারিবারিক স্বাস্থ্য, পুষ্টি, স্যানিটেশন, মাতৃদুগবধপানের গুরুত্ব, আয়বর্ধন মূলক কার্যক্রমের উপর প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।দু’বছর পর পর নতুন ভাতাভোগী নির্বাচন করা হয়। আরো জানতে : ০১৫৫২৪১৯৭৪৮/০১৭৭৫৮৭৯৭৯৩ নম্বরে কল করুন।      

ভাতাভোগী হওয়ার শর্তাবলী :

সেবার নাম : “জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ” শীর্ষক কার্যক্রম

কিভাবে পাবেন : মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর এর জেলা ও উপজেলা কার্যালয় এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। প্রতি বছর “আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ” উদযাপনের মধ্য দিয়ে উপজেলা পর্যায়ে ০৫টি ক্যাটাগরিতে [(১) সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রেখেছেন যে নারী (২) অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী নারী (৩) নির্যাতনের বিভিষীকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যমে জীবন শুরু করেছেন যে নারী (৪) সফল জননী (৫) শিক্ষা ও চাকুরী ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী নারী ] ০৫ জন নারীকে বাছাই করে উপজেলা পর্যায়ে সম্মাননা প্রদান করা হয়। এরপর জেলাধীন সকল উপজেলা থেকে প্রাপ্ত জয়িতা’দের মধ্য থেকে জেলা পর্যায়ে ০৫জনকে নির্বাচন করে সম্মাননা প্রদান করা হয়। জেলা থেকে নির্বাচিত জয়িতা’দের আবার বিভাগীয় পর্যায়ে, সবশেষে জাতীয় পর্যায়ে ০৫টি ক্যাটাগরীতে ০৫জনকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। এ কার্যক্রমের মাধ্যমে দেশের .....................................................। বছরের যে কোন সময় আবেদন পত্র গ্রহণ করা হয়। আবেদনপত্র জেলা/উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়/ওয়েব সাইট : www.dwa.gov.bd হতে পাওয়া যায়। আরো জানতে : ০১৫৫২৪১৯৭৪৮/০১৭৭৫৮৭৯৭৯৩ নম্বরে কল করুন।  

সেবার নাম : দুঃস্থ মহিলা ও শিশু সাহায্য তহবিল বিতরণ কার্যক্রম

কিভাবে পাবেন : মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর এর জেলা ও উপজেলা কার্যালয় এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে।

সেবার নাম : যৌতুক ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ কার্যক্রম

কিভাবে পাবেন : মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর এর জেলা ও উপজেলা কার্যালয় এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে।

সেবার নাম : নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ এবং নারী ও শিশু পাচার প্রতিরোধ কার্যক্রম

কিভাবে পাবেন : মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর এর জেলা ও উপজেলা কার্যালয় এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে।

সেবার নাম : নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ ও আইনগত সহায়তা প্রদান কার্যক্রম

কিভাবে পাবেন : মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর এর জেলা ও উপজেলা কার্যালয় এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter